NIT Agartala 2Education Alerts Knowledge Update Trending News 

কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনের মাস্টার ডিগ্রি কোর্স ৮৭১ জনকে ভর্তি নিচ্ছে

কাজকেরিয়ার অনলাইন নিউজ ডেস্ক: দেশের ১০টি ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিতে মাস্টার অফ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামে ৮৭১ জনকে ভর্তি নিচ্ছে। প্রার্থীবাছাই হবে এনআইটি এমসিএ কমন এন্ট্রান্স টেস্ট (NIMCET-2020)-এর মাধ্যমে। কোর্সটি পড়ানো হবে আগরতলা, এলাহাবাদ, ভোপাল, কালিকট, জামশেদপুর, কুরুক্ষেত্র, রায়পুর, সুরাতকল, তিরুচিরাপল্লি এবং ওয়ারাঙ্গাল এনআইটিতে।

এনআইটি অনুযায়ী আসন সংখ্যাগুলি হল: এনআইটি আগরতলা: আসন সংখা ৩০টি। এনআইটি এলাহাবাদ: আসন সংখ্যা ১১৬টি। এনআইটি ভোপাল: আসন সংখ্যা ১১৫টি। এনআইটি কালিকট: আসন সংখ্যা ৫৮টি। এনআইটি জামশেদপুর: আসন সংখ্যা ১১৫টি। এনআইটি কুরুক্ষেত্র: আসন সংখ্যা ৬৪টি। এইআইটি কুরুক্ষেত্র (সেলফ-ফিন্যান্সিং): আসন সংখ্যা ৩২টি। এনআইটি রায়পুর: আসন সংখ্যা ১১০টি। এনআইটি সুরাতকল: আসন সংখা ৫৮টি। এনআইটি তিরুচিরাপল্লি: আসন সংখ্যা ১১৫টি এবং এনআইটি ওয়ারাঙ্গাল: আসন সংখ্যা ৫৮টি।

মোট অন্তত ৬০ শতাংশ নম্বর সহ কম্পিউটার সাইন্স বা কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনের বিএসসি/ বিএসসি (অনার্স)/ বিসিএ/ বিআইটি/ বি ভোকেশনাল ডিগ্রিধারীরা ম্যাথমেটিক্স বা স্ট্যাটিস্টিক্স একটি বিষয় হিসেবে পড়ে থাকলে অথবা বি ই/ বি টেক ডিগ্রিধারীরা আবেদন করতে পারেন।

প্রার্থীবাছাই হবে লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে। থাকবে ম্যাথমেটিক্স বিষয়ের ৫০টি, অ্যানালিটিক্যাল এবিলিটি অ্যান্ড লজিক্যাল রিজনিং বিষয়ের ৪০টি, কম্পিউটার আওয়ার্নেস বিষয়ের ১০টি এবং জেনারেল ইংলিশ বিষয়ের ২০টি মাল্টিপল চয়েজ টাইপের প্রশ্ন। উত্তরের জন্য সময় পাবেন ২ ঘণ্টা। নেগেটিভ মার্কিং আছে। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে।

প্রার্থীদের অ্যাডমিট কার্ড পাঠানো হবে না। পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড নিচে বলা ওয়েবসাইট থেকে ১১ মে তারিখের পর ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোডে কোনও সমস্যা হলে ১১ মে থেকে ২২ মে-র মধ্যে ইমেল করবেন এই আইডিতে: nimcet@nitrr.ac.in. পরীক্ষা হবে ২৪ মে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত। পরীক্ষা হবে আগরতলা (কোড: ১১), এলাহাবাদ (কোড: ১২), ভোপাল (কোড: ১৩), কালিকট (কোড: ১৪), হামিদপুর (কোড: ১৫), হায়দরাবাদ (কোড: ১৬), জয়পুর (কোড: ১৭), জলন্ধর (কোড: ১৮), জামশেদপুর (কোড: ১৯), কুরুক্ষেত্র (কোড: ২০), পাটনা (কোড: ২১), রায়পুর (কোড: ২২), রৌরকেল্লা (কোড: ২৩), শিলচর (কোড: ২৪), শ্রীনগর (কোড: ২৫), সুরাট (কোড: ২৬), সুরাতকল (কোড: ২৭), তিরুচিরাপল্লি (কোড: ২৮), ওয়ারাঙ্গাল (কোড: ২৯), কলকাতা (কোড: ৩০), দিল্লি (কোড: ৩১) এবং পুনে (কোড: ৩২)।

আবেদন করবেন অনলাইনে https://www.nimcet.in ওয়েবসাইটের মাধ্যমে, ৩১ মার্চের মধ্যে। এরজন্য প্রার্থীর একটি বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকা চাই। অনলাইন আবেদন করতে বসার আগে নিজের পাসপোর্ট মাপের ছবি (৫০ কেবি থেকে ১ এমবি সাইজের মধ্যে), কালো কালী দিয়ে করা সই (৫০ কেবি থেকে ১ এমবি সাইজের মধ্যে), স্বপ্রত্যয়িত করা যাবতীয় শিক্ষাগত যোগ্যতার মার্কশিট ও সার্টিফিকেট (১ এমবি সাইজের মধ্যে) ও কোনও সচিত্র পরিচয়পত্র (১ এমবি সাইজের মধ্যে) পিডিএফ ফর্ম্যাটে স্ক্যান করে রাখবেন। দরখাস্ত করে সময় আপলোড করতে হবে। প্রথমে ওপরে বলা ওয়েবসাইটে গিয়ে যাবতীয় তথ্য দিয়ে নাম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তখন পাবেন রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড। এগুলি যত্ন করে লিখের রাখবেন। আবেদনের ফি বাবদ দিতে হবে ২,৫০০ (তফশিলি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ১,২৫০) টাকা। জমা দেবেন কেবলমাত্র অনলাইনে। এবার ফাইনাল সাবমিশন করে সিস্টেম জেনারেটেড অ্যাপ্লিকেশন নম্বর সহ ফর্মের পিডিএফ ফর্ম্যাটে প্রিন্ট নিতে পারবেন ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এটির প্রিন্ট নিয়ে নিজের কাছে রাখবেন। পরে প্রয়োজন হবে। আরও বিস্তারিত জানতে পারবেন ওপরে বলা এবং সংশ্লিষ্ট এনআইটি-র ওয়েবসাইটে।

পিডিএফ ডাউনলোড করুন:– https://www.nimcet.in/documents/Information-Brochure-NIMCET2020.pdf

অনলাইন আবেদন করুন:– https://www.nimcet.in/

Related posts

Leave a Comment