gobardhan dasMiscellaneous Trending News 

পূর্বস্থলীর গর্বের মুকুটে যোগ হতে চলেছে নয়া পালক

কাজকেরিয়ার অনলাইন নিউজ ডেস্ক: করোনা সংক্রমণের ভ্যাকসিন আবিষ্কারে পূর্বস্থলীর গর্বের মুকুটে যোগ হতে চলেছে নয়া পালক। পূর্বস্থলীর নিমদহের এক বাঙালি দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের মলিকিউলার মেডিসিনের প্রধান গোবর্ধন দাসের নেতৃত্বে চলছে বিসিজি ভ্যাকসিনের সঙ্গে করোনা ভাইরাসের প্রোটিনের সংমিশ্রণ ঘটিয়ে করোনার প্রতিষেধক তৈরির কাজ। সাফল্য প্রসঙ্গে গোবর্ধন দাস জানিয়েছেন, অনেকগুলো ধাপ আছে। অনেকটা এগিয়েছি। একসঙ্গে সব মিলিয়ে কাজ করব। আশা করছি, মাস ছয়েকের মধ্যে একটা ফলাফল পেয়ে যাব।

উল্লেখ্য, পূর্বস্থলীর সরডাঙার বাসিন্দা উপেন্দ্রনাথ ব্রহ্মচারী কালাজ্বরের প্রতিষেধক আবিষ্কার করে অগণিত মানুষের প্রাণ বাঁচাতে ভূমিকা নিয়েছিলেন। এরপর পূর্বস্থলীরই সরডাঙার নিকটস্থ নিমদহের আর এক বাঙালির হাত ধরে করোনার টিকার গবেষণা।

স্থানীয় সূত্রের খবর, পূর্বস্থলীর ধরমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশুনো শুরু হয় গোবর্ধন দাসের। রসায়নে সাম্মানিক স্নাতক হন বিশ্বভারতী থেকে। এরপর দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়ো-টেকনোলজিতে স্নাতকোত্তর করেন তিনি। চন্ডীগড়ের ইনস্টিটিউট অফ মাইক্রোবিয়াল টেকনোলজি থেকে পিএইচডি করেছেন। ১২ বছর আমেরিকায় ছিলেন। ৬ বছর ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে গবেষণা করার পর ভ্যাকসিন কোম্পানি অ্যাভেনটাজে ছিলেন। রাষ্ট্রপুঞ্জেও সিনিয়র সায়েন্টিস্ট হিসেবে কাজ করেন। দেশে ফেরার পর ২০১৩ সালে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে মলিকিউলার মেডিসিনের অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন।

Related posts

Leave a Comment