epfoMiscellaneous 

বেতন হ্রাস ও চাকরি ছাঁটাইয়ের নালিশে কন্ট্রোলরুম

কাজকেরিয়ার অনলাইন নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় অর্থনীতি করোনা সংক্রমণের পূর্বেই মন্দা ছিল। করোনা সংক্রমণের পর আরও খারাপের দিকে দেশের অর্থনীতি। একাধিক শিল্পক্ষেত্রে কাজ হারাতে বসেছেন অসংখ্য স্থায়ী-অস্থায়ী কর্মচারীরা। আবার বেতনে কোপ পড়ছে চাকরি থাকা কর্মীদেরও।

সূত্রের খবর, বহু সংস্থা কর্মীদের একাংশকে ইতিমধ্যেই বেতন ছাড়া ছুটি দিতে বাধ্য হয়েছে। এই বিপর্যস্ত পরিস্থিতি কাটলেও ক্রেতা চাহিদার অভাব অর্থনীতির ওপর বিরাট প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞমহল। কর্পোরেট সংস্থাগুলি যাতে ঢালাও কর্মী ছাঁটাই ও বেতন হ্রাসের পথে না হাঁটে, তার নজরদারি করতে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রককে নির্দেশ পাঠিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর।

সূত্রের আরও খবর, বেতন কমানো এবং চাকরি থেকে ছাঁটাইজনিত নালিশ জানাতে ২০টি কন্ট্রোলরুম খুলেছে শ্রমমন্ত্রক। পাশাপাশি তার তদারকির জন্য সেন্ট্রাল চিফ লেবার কমিশনারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ১,৫০০টি নালিশ জমা পড়েছে। যারমধ্যে ১,০০০টি রাজ্য সরকারি কর্মীদের থেকে। বাকি ৫০০টি কেন্দ্রীয় সরকার কর্মচারীদের পক্ষ থেকে। পুরো বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর খতিয়ে দেখছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও জানা গিয়েছে, এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড (ইপিএফও) এবং এমপ্লয়িজ স্টেট ইনসিওরেন্স ফান্ড (ইএসআইসি) কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে, প্রতিদিন চাকরি ছাঁটাই, বেতন হ্রাস অথবা বেতন দেওয়া পিছিয়ে দেওয়া সহ তথ্য পাঠাতে হবে মন্ত্রকে। সেখান থেকে প্রতি সপ্তাহে একটি রিপোর্ট তথ্যের ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে (পিএমও) পাঠাবে শ্রমমন্ত্রক।

Related posts

Leave a Comment