new year and 2021Miscellaneous Trending News 

নববর্ষ পালনে জোর তৎপরতা – সক্রিয় পুলিশ ও প্রশাসন

কাজকেরিয়ার অনলাইন নিউজ ডেস্ক: করোনার আবহে ইংরেজি নববর্ষ পালন। দিল্লি,মুম্বই ও কলকাতা সহ একাধিক শহরে জারি হয়েছে কড়া বিধিনিষেধ। নববর্ষ উদযাপনের প্রস্তুতি শুরু। তবে জারি হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধও। দিল্লি, মুম্বই, কলকাতা ও চেন্নাই-সহ দেশের প্রতিটি বড় শহরে সক্রিয় পুলিশ-প্রশাসন। দেখে নেওয়া যেতে পারে কী কী নিয়ম লাগু হতে চলেছে। বছরের শেষেও করোনা আবহ রয়েছে। এই মারণ ভাইরাসের নতুন মিউটেশন নিয়ে ফের আতঙ্ক বেড়েছে। এই অবস্থায় নববর্ষ উদযাপনের প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে। একাধিক বিধিনিষেধও থাকছে। থাকছে নাইট কারফিউও।
কলকাতার ক্ষেত্রে পার্ক স্ট্রিট-সহ কলকাতার একাধিক জায়গায় নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে তৈরি মানুষজন। বেশ কিছু অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সমস্ত ক্ষেত্রেই করোনার প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি ও যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলতে হবে। একাধিক এলাকায় থাকবে পুলিশের ওয়াচ টাওয়ার। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। বজায় রাখতে হবে সামাজিক দূরত্ব। মাস্ক ব্যবহার করা জরুরি। সমস্ত রকমের ভিড়ের উপরেই কড়া নজর রাখবে কলকাতা পুলিশ। রাজ্যের অন্যত্রও একই ব্যবস্থা থাকবে।
মুম্বইয়ের ক্ষেত্রে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত রাত ১১টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত নাইট কারফিউ জারি থাকবে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যাঁদের বয়স ১০ বছরের নিচে বা ৬০ বছরের উপরে, তাঁরা যেন সতর্ক থাকেন। সমস্ত রকম ভিড় এড়িয়ে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে কোনও ধর্মীয় বা সাংস্কৃতিক মিছিলের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। মুম্বই পুলিশ মোতায়েন থাকবে গোটা শহর জুড়ে। কড়া বিধিনিষেধ লাগু থাকবে হোটেল, রেস্তোরাঁ ও নাইট ক্লাবগুলিতে।
সূত্রের খবর, মুম্বইয়ের বাসিন্দারা শহরের মধ্যে তাঁদের পছন্দের জায়গা যেমন- মেরিন ড্রাইভ, গিরগাম চোপট্টি, জুহু, মধ আইল্যান্ড-সহ একাধিক জায়গায় যেতে পারেন। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা-সহ সমস্ত প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। চারজনের বেশি একসঙ্গে থাকাও যাবে না।
আবার দিল্লির ক্ষেত্রে হোটেলের ছাদে বড় পার্টি বা কোনও বড় আয়োজনের ওপর কড়া বিধি-নিষেধ জারি থাকছে দিল্লি পুলিশের। অন্যদিকে ৩১ ডিসেম্বর ও ১ জানুয়ারি রাত ১১টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জারি থাকবে নাইট কারফিউ। মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি একাধিক স্থানে থার্মাল স্ক্রিনিং ও স্যানিটাইজিংয়ের ব্যবস্থা থাকবে। মেট্রো স্টেশনগুলিতে বেঁধে দেওয়া হয়েছে সময়সীমাও।
হোটেল, মল, রেস্তোরাঁ ও ক্লাবগুলি স্বাভাবিক ভাবে চলবে। বিশেষ আয়োজন ও ডিজে পার্টি, মিউজিক্যাল নাইট বা কোনও অনুষ্ঠান হবে না। সমুদ্রতট, ফার্ম হাউজ বা ক্লাবেও কোনওরকম পার্টির আয়োজন করা যাবে না। গোয়াতেও সমস্ত নিয়ম বলবৎ থাকছে । গোয়ার বাসিন্দা ও পর্যটকদের সকলকেই মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা-সহ যাবতীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলে প্রশাসনিকভাবে জানানো হয়েছে। করোনা আবহে দেশব্যাপী সতর্কতা বলবৎ থাকবে।

Related posts

Leave a Comment