Sundarban River DamMiscellaneous 

“আম্ফান” ঘূর্ণিঝড়েও সেই বাঁধভাঙা আর্তনাদ সুন্দরবনে

কাজকেরিয়ার অনলাইন নিউজ ডেস্ক : আয়লার স্মৃতি এখনও ভাসছে সুন্দরবন এলাকার মানুষদের। স্থানীয় সূত্রের খবর, ভাঙা বাঁধের সেই ছবি এখনও টাটকা ওখানকার মানুষের। উল্লেখ্য, গত ২০০৯ সালের ২৫ মে “আয়লা”-র তাণ্ডব চলেছিল। ২০২০ সালের ২০ মে “আম্ফান” এল। সূত্রের আরও খবর, ১১ বছরে আয়লায় বিধ্বস্ত বাঁধ সারাইয়ের প্রথম দফার কাজ এখনও হয়নি। প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, জমি জটিলতার কারণে প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ কেন্দ্রীয় টাকাও সম্পূর্ণ ব্যবহার হয়নি। আয়লার বিধ্বংসী খেয়ালে ১৭৭ কিলোমিটার সমুদ্র ও নদী বাঁধ ভেঙে গিয়েছিল বলে খবর। আবার ৬০০ কিলোমিটারের মতো বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। উল্লেখ্য, তৎকালীন সরকার টাস্ক ফোর্স গঠন করে বাঁধ পুনর্নির্মাণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল। কেন্দ্রীয় জল সম্পদ মন্ত্রক রাজ্যকে এই খাতে টাকা দিতেও সম্মত হয়। সূত্রের আরও খবর, ২০১০ সালে কেন্দ্র ৫০০০ কোটি টাকা বরাদ্দও করেছিল। সব মিলিয়ে ৭৭৮ কিমি বাঁধ মেরামতের জন্য ৫০৩২ কোটি টাকার অনুমোদনও এসেছিল। ২০১০ সালের শেষের দিকে প্রাথমিক পর্বে ১৮৪ কিমি সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামত প্রকল্পের প্রক্রিয়া শুরুও হয়েছিল। জানা যায়, বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ১৩৩৯ কোটি টাকা। এক্ষেত্রে ১৮৪ কিমি বাঁধ মেরামতের জন্য প্রয়োজন ছিল ২৫০০ একর জমি। জমি অধিগ্রহণের নোটিসও দেওয়া হয় বলেও জানা গিয়েছে। এরপর রাজ্যে ক্ষমতার পালাবদল হয়। সরকার কোনও জমি অধিগ্রহণ করবে না। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এরপর আটকে যায় বাঁধের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া। জমি পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধা হবে না বলে জানানো হয়েছিল। তবে “আম্ফান” ঘূর্ণিঝড়েও সেই বাঁধভাঙা আর্তনাদ এখনও রয়েছে সুন্দরবনে।

Related posts

Leave a Comment